Home » Featured » চায়না, তাইওয়ান, মাল্টা স্টাইলে প্রত্যেক ব্রিটিশ নাগরিককে খরচের জন্য ৫০০ পাউন্ড দেয়ার আলোচনা করছেন রিশি সোনাক

চায়না, তাইওয়ান, মাল্টা স্টাইলে প্রত্যেক ব্রিটিশ নাগরিককে খরচের জন্য ৫০০ পাউন্ড দেয়ার আলোচনা করছেন রিশি সোনাক

সৈয়দ শাহ সেলিম আহমেদ। কোভিড নাইন্টিন-করোনা ভাইরাসে সারা বিশ্বের ন্যায় ব্রিটেনের অর্থনীতি, জীবন মান বিধ্বস্ত। অর্থনীতিতে প্রাণ সঞ্চার করতে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ঝুকি নিয়ে ৪ঠা জুলাই থেকে ব্রিটেনে দোকান, রেস্টুরেন্ট, সেলুন, পাব খুলে দিয়েছেন।জনসন চান মানুষ সামাজিক দুরত্বের নীতিমালা মেনে পাব, রেস্টুরেন্ট, দোকান, সেলুনে খরচ করুক-যাতে অর্থনীতিতে গতি সঞ্চারিত হয়। ব্যাংক অব ইংল্যান্ড প্যানডেমিক করোনার প্রাদুর্ভাব থেকে অর্থনীতিকে ডুবন্ত অনস্থা থেকে বাচাতে, এমনকি ব্রিটিশ অর্থনীতি দেওলিয়ার দ্বার প্রান্ত থেকে রক্ষা করতে হস্তক্ষেপ করেছিলো-সেটা এখন সর্বজন স্বীকৃত।

এমনি অবস্থায় চ্যান্সেলর রিশি সোনাক ব্রিটিশ অর্থনীতিকে সচল করতে নানামুখী পরিকল্পনা ও উদ্যোগ নিয়ে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছেন। রেজ্যুলুশন ফাউন্ডেশনের অর্থনীতির বিশ্লেষকেরা গতরাতে হোয়াইট হলে ট্রেজারির সাথে এ নিয়ে বিস্তর আলোচনা করেছেন। ফাউন্ডেশনের থিংক ট্যাংক সাজেশন করেছেন অর্থনীতিকে সচল করতে হলে ব্রিটেনের প্রত্যেক প্রাপ্ত বয়ষ্ক নাগরিককে হাত খরচের জন্য ৫০০ পাউন্ড, শিশুদের ২৫০ পাউন্ড করে ভাউচার অথবা স্মার্টকার্ড অথবা মোবাইলে ইলেক্ট্রনিক ট্রান্সফারের মাধ্যমে নির্দিষ্ট সেক্টরে খরচ যেমন হসপিটালিটি ইন্ডাস্ট্রি, ফেস টু ফেস সেলুন, দোকান-অনলাইন নয়, এমনভাবে ক্যাশ দেয়ার সুপারিশ করেন। যা ট্রেজারি এখন বিষদ চিন্তা ভাবনা করছে। এনিয়ে ট্রেজারিকে জিজ্ঞেস করা হলে তারা এ বিষয়ে মন্তব্য না করে এই ধারণাকে বাতিল করে দেননি।

ফাউন্ডেশনের থিংক ট্যাংক রিশি সোনাককে বলেছেন, এরকম সিস্টেম চায়না, তাইওয়ান, মাল্টা তাদের নাগরিককে ভাউচার দিয়ে অর্থনীতি সচল করতে সক্ষম হয়েছে-করোনার সময়ে। চায়না সেজন্য ৫০০ মিলিয়ন তার উহানের নাগরিকদের ভাউচার দিয়েছে। মাল্টাও অনুরুপ করেছে।

ফাউন্ডেশন এবং সোনাক হিসেব করে দেখেছেন এতে সরকারের খরচ হবে ৩০ বিলিয়ন পাউন্ড। এই ভাউচার খরচের মেয়াদ থাকবে ১ বছর সময়কাল। কোভিড নাইন্টিনের দ্বিতীয় ধাক্কা এলে এই স্কীম বন্ধ হয়ে যাবে বলে অভিমত দেয়া হয়েছে।

ফাউন্ডেশন বলছে, ভিএটি হ্নাসের চাইতে এই স্কীম চালুর মাধ্যমে অর্থনীতি কুইক কিকস্টার্ট সমভব।

রেজুল্যুশন ফাউন্ডেশনে রিসার্চ ডিরেক্টর জেমস স্মীথও চ্যান্সেলরের বুধবারের অর্থনীতি রিকভারি(পুণরুদ্ধারের) প্যাকেজের ব্যাপারে ইতিবাচক মন্তব্য করেন। ট্রেজারি অবশ্য এমন ধারণা অস্বীকার না করে বলছে, চ্যান্সেলরের বুধবারের প্যাকেজ ৩২ মিলিয়ন পাউন্ডের ক্যারিয়ার সার্ভিসের বুস্টের প্যাকেজ-যা অধিক ক্যারিয়ার সার্ভিস ওয়ার্কার নিয়োগের মাধ্যমে ২৭০,০০০ লোক ক্যারিয়ার এডভাইস এর সুযোগ প্রদান, যাতে কাজে অংশগ্রহণের সুযোগ সৃষ্টি করা যায়।

 

@salim1689

5th July 2020, Morning time, UK:

 

Today one-minute news:

***Global report: WHO reports record 200,000 cases in one day, amid surging outbreaks(guardian)

***’Crystal clear’ drunk people can’t socially distance, say police in England

***Hancock praises people for acting responsibly as pubs reopen in England

****PHE was blamed for restricting the coronavirus testing process to its own labs. Was that a fair criticism?
Yes, I think it is. If they’ve got any defence it’s that the whole public health system was turned on its head about seven years ago with the Lansley reforms. We had a structure in place that allowed regional public health people to take control of something like an epidemic, and that was dismantled. They’ve degraded the public health system. You could also argue the problem was Sage. In early February, they should have known that this was a pandemic that was coming and the first thing you would want to do was test – and they had a test. Why didn’t they go to the 44 molecular biology laboratories around the country that were all geared up to do this? There was no public health person on Sage. No one who was independent who could say: “Come on guys, this is what you’ve got to do.”-Former WHO director Anthony Costello

 

error: Content is protected !!