Home » Featured » স্কুলের ছেলে মেয়েদের ডিজিটাল টেকনোলজিতে মানব সম্পদে প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ক্রিয়েটর ল্যাব কাজ শুরু করেছে

স্কুলের ছেলে মেয়েদের ডিজিটাল টেকনোলজিতে মানব সম্পদে প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ক্রিয়েটর ল্যাব কাজ শুরু করেছে

লন্ডন, ব্রাডি আর্ট সেন্টার। ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯। আপডেট, ২১ঃ৪৭। আজকের যুগ টেকনোলজির যুগ। সারা বিশ্ব এখন সব কিছু ডিজিটাল টেকনোলজিতে এগিয়ে যাচ্ছে। বিশ্বের যেকোন জায়গা থেকে সহজেই এখন যোগাযোগ, ব্যাংকিং, তথ্য প্রযুক্তি, বিজ্ঞান, সাহিত্য, সংস্কৃতি এক কথায় মানব জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে তথ্য প্রযুক্তির প্রভাব অনস্বীকার্য। জাপান, চীন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, পাশের দেশ মালয়েশিয়া-তথ্য প্রযুক্তির ক্ষেত্রে অভাবনীয় উন্নতি সাধন করেছে। এসব দেশের ছোট ছোট ছেলে মেয়েরা তথ্য প্রযুক্তিতে বিস্ময়কর সাফল্য লাভ করেছে।

বাংলাদেশ বিশেষ করে বাংলাদেশের আগামীর স্বপ্ন ভবিষ্যত এর কান্ডারি স্কুলের ছেলে মেয়েরা এখনো এই ক্ষেত্রে অনেক অনেক পেছনে। যে কটা স্থানে এই খাতের সেবা ও প্রশিক্ষণ উপস্থিত, সেক্ষেত্রে চাহিদা যোগান আর আর্থিক অসচ্ছলতার কারণে সেই সব সুযোগ মধ্যবিত্তের ছেলে মেয়েদের ও গরীব সন্তানদের নাগালের বাইরে।

এই গ্যাপ পূরণের ক্ষেত্রে এবং তথ্য প্রযুক্তির ক্ষেত্রে গরীব অসচ্ছল এবং মেধাবী মধ্যবিত্ত ও নিম্ন মধ্যবিত্ত ছেলে মেয়েদের জন্য নতুন সম্ভাবনার এক দিগন্ত খুলে দিয়েছে সিলেটের ক্রিয়েটর ল্যাব এবং ক্যাফে বিডি।

আজ লন্ডনের ব্রাডি আর্ট সেন্টারে অ্যাপাসান অফিসে ক্রিয়েটর ল্যাব ও ক্যাফে বিডির সৌজন্যে এক প্রেস কনফারেন্সের আয়োজন করা হয়। এতে ক্রিয়েটর ল্যাব ও ক্যাফে বিডির বিস্তারিত কর্মসূচী ও তথ্য তুলে ধরেন নতুন ডিজিটাল টেকনোলজির স্বপ্ন দ্রষ্ঠা ও প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ কবির উদ্দিন। সাথে ছিলেন বাংলাদেশের স্কুলের ছেলে মেয়েদের কাছে এই তথ্য প্রযুক্তির সেবা ও প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষ করে গড়ে তোলার স্বপ্নবান ব্রিটিশ শিক্ষক, প্রফেশনাল লুক ডয়েল। ক্রিয়েটর ল্যাবকে আর্থিক সহযোগিতা দিয়ে এই প্রজেক্টকে সাসটেইনে এবং ফাইন্যান্স রিজেনারেট করার ক্ষেত্রে যিনি ভুমিকা রাখছেন, সেই তরুণ ব্রিটিশ উদ্যোক্তা ব্যবসায়ী জিল্লু মিয়া।

সংবাদ সম্মেলনে ক্রিয়েটর ল্যাব নিয়ে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সাংবাদিক, গবেষক ও ক্রিয়েটর ল্যাবের অন্যতম উদ্যোক্তা বাসন নজরুল ইসলাম।

সংবাদ সম্মেলনে উদ্যোক্তারা জানান, ক্রিয়েটর ল্যাব বর্তমানে সিলেটের হাউজিং এস্টেটে নতুন স্কুল প্রতিষ্টা করেছেন, যার মাধ্যমে স্কুলের ছোট ছোট ছেলে মেয়েদেরকে কম্পিউটর সফটওয়ারের উদ্ভাবনী শক্তি কাজে লাগিয়ে গেইম প্রতিষ্ঠা, গ্রাফিক্স ডিজাইনর, বিবিসি কম্পিউটর এডুকেশনে ব্যবহ্নত মাইক্রো-বিটকে কাজে লাগিয়ে উপযুক্ত প্রশিক্ষণের মাধ্যমে তাদেরকে তথ্য প্রযুক্তির ক্ষেত্রে মানব সম্পদে পরিণত করার জন্য নানামুখী কর্মসূচীর ক্লাস শুরু করেছেন। এসময় বিভিন্ন প্রজেক্টের তথ্য নিয়ে ডকুম্যান্টারির মাধ্যমে সাংবাদিকদের কাছে তুলে ধরেন।

সংবাদ সম্মেলনে কবির উদ্দিন এবং লুক ডয়েল জানান, ছোট ছোট এসব ছেলে মেয়েদেরকে তারা বিশ্বখ্যাত অ্যারডুইনো প্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে মেশিনারি, রোবট, কার সহ সব ধরনের প্রযুক্তি উদ্ভাবন ও ডিজাইনের সাথে পরিচয় করিয়ে দিচ্ছেন, যা তারা তার মাধ্যমে নিজেরাই ডিজাইন ও আবিষ্কার করতে পারছে এবং পারবে।

সংবাদ সম্মেলনে এই প্রথম ব্রিটিশ বাংলাদেশি কোন প্রজেক্টে ফাইন্যান্সিয়াল সাপোর্টের ব্যাপারে কোন সাহায্য চাওয়া হয়নি-যা ছিলো ব্যতিক্রমের মধ্যে ব্যতিক্রম।

উল্লেখ্য কবির উদ্দিন একজন অসম্ভব মেধাবী তথ্য প্রযুক্তি উদ্ভাবনী শক্তির অধিকারি। গরীব কৃষকের ঘরে জন্ম নেয়া সিলেটের ধলই পাড়া খাদিম পাড়ার সন্তান কবির উদ্দিনের তথ্য প্রযুক্তির মেধার স্বীকৃতি স্বরূপ বিশ্বখ্যাত প্রযুক্তির শীর্ষ প্রতিষ্ঠান  মাইক্রোসফটের মাধ্যমে আমন্ত্রিত হয়ে মার্কিন মুল্লুকে নিজের উদ্ভাবনী প্রতিভার স্বাক্ষর রাখলে, সেখানে লোভনীয় চাকরীর অফার ফিরিয়ে  দিয়ে নিজ দেশের অসহায় গরীব স্কুলের ছাত্র ছাত্রীদের হাতে কলমে তথ্য প্রযুক্তির নানা উদ্ভাবনী কৌশল শিক্ষাদানের মাধ্যমে স্বাবলম্বী ও দেশের জন্য মানব সম্পদের পরিণত করার মহতী এক প্রকল্প হাতে নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। তাকে সার্বিকভাবে সহযোগিতা দিয়ে ব্রিটিশ মেধাবী শিক্ষক লুক ডয়েল এবং সাংবাদিক গবেষক নজরুল ইসলাম বাসনের সাথে এই প্রকল্পের পৃষ্ঠপোষক হিসেবে এগিয়ে এসেছেন ব্রিটিশ বাংলাদেশি মেধাবী ব্যবসায়ী জিলু মিয়া।

সংবাদ সম্মেলনে আরো বক্তব্য রাখেন চ্যানেল এস এর চেয়ারম্যান আহমেদ উস সামাদ চৌধুরী, লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি এমদাদ হক। সংবাদ সম্মেলনে উদ্যোক্তাদের ধন্যবাদ জানিয়ে বক্তব্য শেয়ার করেন চ্যানেল এইট ও লন্ডন টাইমসের প্রকাশক, সম্পাদক সৈয়দ শাহ সেলিম আহমেদ। এসময় অন্যান্যের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন সাপ্তাহিক সুরমার আব্দুল কাইয়ূম, চ্যানেল এস ও লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাবের ইব্রাহীম খলিল, ওয়ান বাংলা ও টিভি ওয়ানের কয়েছ আলী, এলবি টুয়েন্টিফোরের শাহ চৌধুরী, আইওন টিভির আব্দুল কাদির চৌধুরী মুরাদ, চ্যানেল এসের রেজাউল মৃধা সহ আরো অনেকে।

সংবাদ সম্মেলনে চ্যানেল এসের চেয়ারম্যান ক্রিয়েটর ক্লাবের প্রকল্পকে এগিয়ে নেয়ার জন্য সব ধরনের সহযোগিতার  আশ্বাস প্রদান করেন।

Please follow and like us:

Follow by Email
YouTube
Pinterest
LinkedIn
Share
Instagram
error: Content is protected !!