Home » Featured » লুতফুর রহমানের পথে নাদাইন ডোরিস- এমিপি পদ হারাতে যাচ্ছেন!

লুতফুর রহমানের পথে নাদাইন ডোরিস- এমিপি পদ হারাতে যাচ্ছেন!

সৈয়দ শাহ সেলিম আহমেদ

 

কনজারভেটিভ পার্টির এমপি নাদাইন ডোরিস এর বিরুদ্ধে নির্বাচনে তার প্রতিদ্বন্ধি টিম আয়ারল্যান্ড নির্বাচন কমিশনের কাছে তার বিরুদ্ধে পিটিশন দাখিল করেছেন ডেঞ্জারাস ক্রিমিনাল এক্টিভিটির তথা নির্বাচনের সময়ে অসৎ, অন্যায়, অগ্রহণযোগ্য এবং মিথ্যা প্রচারণার মাধ্যমে তার(টিম) ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার জন্য তিনি আবেদন করেছেন। সেজন্যে একই সাথে তার সদস্য পদ বাতিলের দাবীও করেছেন। টিম আয়ারল্যান্ড কমিশনের কাছে জানিয়েছেন নির্বাচনী প্রচারণার সময়ে ডোরিস তার ব্লগ, লিফলেট, ইন্টারনেট, সামাজিক সাইট ইত্যাদিতে টিম আয়ারল্যান্ড সম্বন্ধে ব্যক্তিগত মিথ্যা অভিযোগ এনে প্রচারণা করেছেন। হাইকোর্টে টিম আয়ারল্যান্ডের অভিযোগ শুনানীর জন্য গৃহীত হয়েছে। ফলে ধারণা করা হচ্ছে মিড-বেডফোর্ড শায়ারের কনজারভেটিভ এই এমপি তার স্বপদ হারাতে পারেন।

 

ব্রিটেনের মূলধারার দৈনিক ইন্ডিপেন্ডেন্ট তাদের প্রতিবেদনে দাবী করেছে, তারা টিম আয়ারল্যান্ডের এই সব অভিযোগ তাদের গোচরীভূত হয়েছে এবং তারা দেখেছেন, টিম নাদাইন ডোরিসের বিরুদ্ধে ৭ই মের নির্বাচনের সময়ে তার বিরুদ্ধে ব্যক্তিগত আক্রমণ সহ ফলস ১৪টি অভিযোগ তিনি দায়ের করেছেন কমিশনে।

 

১৯৮৩ সালের পিপলস রিপ্রেজেন্টেটিভ এক্ট এর ১০৬ সেকশন মতে নির্বাচনের সময় কোন প্রার্থী তার অপর প্রার্থীর বিরুদ্ধে অন্যায় ও মিথ্যা ব্যক্তিগত আক্রমণ করা  অবৈধ বিবেচিত হবে, যদি না যুক্তিসঙ্গত এবং প্রমাণ সাপেক্ষে কোন গ্রাউন্ড না থাকে।

 

মিড বেডফোর্ডশায়ারের কভেন্ট ইলেকশন কোর্টের দুজন জাজ এই অভিযোগ সমূহ এখন খতিয়ে দেখবেন। যদি টিম আয়ারল্যান্ডের আনীত অভিযোগসমূহ প্রমাণিত হয় তাহলে কনজারভেটিভ এমপি তার পদ হারাবেন, নির্বাচন বাতিল ঘোষিত হবে।

 

টিম আয়ারল্যান্ডের ডকুম্যান্টস মতে জানা গেছে, ডোরিস নির্বাচনের সময়ে আয়ারল্যান্ডকে ব্যক্তিগত আক্রমণ করে একজন ক্রিমিন্যাল হিসেবে অভিযুক্ত করে বলেছেন আয়ারল্যান্ডের ক্রিমিন্যাল কাজের হিসেবে তাকে কনভিক্টেড এবং জেলে থাকা উচিৎ ।

 

এমপি ডোরিস যদিও এই সব অভিযোগের ব্যাপারে কোন মন্তব্য এখন করেননি তবে তিনি জানিয়েছেন আয়ারল্যান্ডের ব্যাপারে আনীত তার অভিযোগ সমূহ তিনি অবহিত এবং এভিডেন্স রয়েছে।

 

তবে ইলেকশন পিটিশনের সেকশন ১১০ অনুসারে ডোরিস এমপি দোষী প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং এর নাম ও এড্রেস অনুসারে প্রতীয়মান বলে ইন্ডিপেন্ডেন্টের কাছে বোধগম্য হয়েছে।

 

উল্লেখ্য নাদাইন ডোরিস ৭ই মের নির্বাচনে ৩২,৫৪৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। পক্ষান্তরে অভিযোগকারী টিম আয়ারল্যান্ড মাত্র ৩৮৪ ভোট পেয়েছেন। কিন্তু নির্বাচন কমিশন আইন অনুযায়ী এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে ২৩,৩২৭ মেজরিটি ভোট কমিশনের কাছে বিবেচ্য নয়- সেকারনেই কোর্টে সেটা গৃহীত হয়েছে এবং শীগ্রই শুনানীর জন্য তারিখ নির্ধারিত হবে।

 

আয়ারল্যান্ডের সলিটির অ্যান্ড্রো কার্টার জানিয়েছেন তার মক্কেল কোর্টের কস্ট সিকিউরিটি বাবত ৫,০০০ পাউন্ড ইতোমধ্যেই জমা দিয়েছেন এবং শুনানির জন্য পিটিশন গৃহীত হয়েছে।

 

উল্লেখ্য প্রায় একই রকম অভিযোগের প্রেক্ষিতে ইতোমধ্যে টাওয়ার হ্যামলেটস বারার নির্বাচিত মেয়র লুতফুর রহমান এবং ওল্ডহ্যাম ইস্ট এবং স্যাডেলওয়ার্থের এমপি ফিল উলাস নির্বাচনী পদ হারিয়েছেন এবং তাদের নির্বাচনও বাতিল করেছেন আদালত। নাদাইন ডোরিস এর আগে টোরির মহিলা এমপি অ্যান মিল্টনকে নিয়েও এরকম মন্তব্য করে আলোচিত  হয়েছিলেন এবং ঐ সময় চার পুলিশ কর্তৃক তদন্ত হয়েছিলো।

 

Salim932@googlemail.com

11th June 2015, London

 

 

Please follow and like us:

Add a Comment

Your email address will not be published.

Follow by Email
YouTube
Pinterest
LinkedIn
Share
Instagram
error: Content is protected !!