Home » কলাম » মওদুদ আহমদের অসুস্থ্যতা ও আওয়ামীলীগের নতুন চমক !

মওদুদ আহমদের অসুস্থ্যতা ও আওয়ামীলীগের নতুন চমক !

“ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ অসুস্থ্য সত্যি, তার চেয়ে আরো সত্যি মওদুদ আহমদকে নিয়ে নতুন রাজনৈতিক খেলা মঞ্চস্থ হতে চলেছে বলে ভেতরকার খবর জানা গেছে।তার আগে আল্লাহর দরবারে এই অভিজ্ঞ পার্লামেন্টারিয়ানের সুস্থ্যতা কামনা করি, দোয়া করি মহান আল্লাহ পাক উনাকে যেন সুস্থ্য করে তুলেন তাড়াতাড়ি।“

আওয়ামীলীগ একের পর এক নাটক আর চমক দেখাতে অভ্যস্ত। বেগম জিয়ার সিঙ্গাপুর মিশন যখন সাকসেসফুল-এমন সংবাদের নাটকীয়তায় সরকারও নড়ে চড়ে বসে। রাজনীতিতে বহু ঘটন-পটন পটীয়সী, সকল সরকারের ফায়দা ভোগকারী, বহুরূপী অভিজ্ঞ পার্লামেন্টারিয়ান মওদুদ আহমদকে নিয়ে সরকার টানা-হ্যাচড়া শুরু করে দিয়েছে। বলা যায়, মওদুদ আহমদ এখন সরকারের ক্রীড়নকে পরিণত হতে চলেছেন।এবারকার অসুস্থতা যদিও কিছুটা বাস্তব হলেও মূলত সরকারি নীল-নক্সা অনুযায়ী তিনি হাসপাতালে ভর্তি হতে বাধ্য হন। জানা গেছে, ঢাকার ভারতীয় দূতাবাসের কর্মকর্তার টেলিফোন পেয়ে হাসিনার সরকার বেগম জিয়ার সিঙ্গাপুর ভ্রমণের ব্যাপারে প্রথম নিশ্চিত হন। কিন্তু ততক্ষণে অনেক দেরি হয়ে যায়। হাসিনা যখন বেগম জিয়ার মিশন সম্পর্কে ভারতীয় দূতাবাসের ঐ কর্মকর্তার মাধ্যমে অবগত হন, তখন বেগম জিয়ার প্লেন ঢাকার মাটি ত্যাগ করে ফেলেছে। হাসিনা তখনি বিকল্প ট্র্যাপ হিসেবে (যা আগে থেকেই একক নির্বাচনের ছক থেকেই গোপন শলা-পরামর্শ চলছিলো) মওদুদের দিকে হাত বাড়ান। তারই অংশ হিসেবে এর মধ্যে মওদুদের বিরুদ্ধে দুদুক, ডিবি, আর পাসপোর্ট সংক্রান্ত নথি তলব করে পেছনে লাগিয়ে দেয়া হয়। মওদুদ উপায়ান্তর না দেখে অসুস্থতার ভান করে হাসপাতালে ভর্তি হলে হাসিনা প্রথমে পিছু হটেন। ইতিমধ্যে বেগম জিয়ার সিঙ্গাপুর মিশনের খবর সরকারের উপর মহলে পৌঁছে গেলে গোয়েন্দা নজরদারি জোরদার করা হয়।

দুদুকের নথি এখন মওদুদের বিরুদ্ধে সরব। যেকোন মুহূর্তে মামলা।বহির্গমন ও ইমিগ্রেশন(পাসপোর্ট অনুবিভাগও) এগিয়ে। সরকারের সিগন্যাল পেলেই মামলা। সব কিছু নির্ভর করছে মওদুদের সম্মতির উপর। তবে তলে তলে তিনি নিজেই এপথে এগিয়েছেন বলে তাকে যারা চেনেন, সরকারি ও বিরোধীদলের নেতাদের অভিমত। সরকারের বার্তা নিয়ে ইতিমধ্যে মন্ত্রী হাসানুল হক ইনু মওদুদের সাথে একান্তে আলোচনাও করেছেন। মওদুদ এখনো দ্বিধান্বিত, দ্বিধা-দ্বন্ধ থাকায় তিনি আরেকটু সময় নিতে চাইলে, বেগম জিয়ার সিঙ্গাপুর মিশনে সরকার মওদুদকে সময় দিতে নারাজ। সরকারের এমন হার্ড লাইনে মওদুদ আরো অসুস্থ হয়ে পড়েন।

সরকারের নীতি-নির্ধারক একজন সচিব নিশ্চিত করেছেন, মওদুদ ইস্যুতে বেগম জিয়ার সিঙ্গাপুর চাল ভেস্তে যাবে। আর রাজনীতির রঙ্গ-মঞ্চে মওদুদ ইতিমধ্যে অনেক ডিগবাজী দিয়েছেন। তিনিও সেয়ানা খেলোয়াড়-জানেন কখন কোন চাল খেলতে হয়।

মওদুদের তৃণমূল বিএনপি আস্তে আস্তে বীজ রোপিত হচ্ছে, এমন সিগন্যাল সরকারের আরেক শরিক এরশাদের কাছে হাসিনার দূত মারফত পৌঁছে গেছে। এ সংবাদে এরশাদ এখন বেশ চাঙ্গা ভেতরে ভেতরে। হাসিনা এরশাদকে ম্যাসেজ দিয়েছেন, বিকল্পের বিকল্প জোট লন্ডনের বিএনপি নীতি-নির্ধারনী নেতার কারণেই বি চৌধুরী, ডঃ কামাল বিএনপির কাছে বিশ্বস্ততায় আস্থাহীন অবস্থায় আছেন। আর হাসিনার সমর্থন ব্যতিরেকে বি চৌধুরী ও ডঃ কামালের পক্ষে নির্বাচনে জিতে আসা সম্ভব নয়। হাসিনা আরো ভালো করেই জানেন বি চৌধুরী ও কামাল হোসেনকে সময় মতোই মোক্ষম সময়ে হ্যান্ডেল করার মতো যথেষ্ট তথ্য হাসিনার হাতে রয়ে গেছে, যা সময়ে কাজে লাগানো হবে। আ স ম রব, মান্না, জীবন থাকতে কখনো স্বাধীনতা বিরোধীদের সাথে হাত মেলাবেনা-হাসিনা নিশ্চিত।নির্বাচনে রব-কাদের-মান্না এই তিন নেতা জিতে আসলেও হাসিনার জন্য বিপদের কারণ হবেননা- এমন ম্যাসেজ এরশাদ পাওয়ার পর হাসিনার আশীর্বাদে ইসলামী জোট গঠনে এখন বেশ সক্রিয়।

এদিকে মওদুদের ঘনিষ্ঠদের কাছে এ সংবাদ পৌঁছে গেছে, তৃণমূল বিএনপি এখন সময়ের ব্যপারমাত্র। যেমন বিএনএফ নামক নয়া সংগঠন- সব কিছু ঠিক ঠাক থাকলে বিএনএফ নাম পরিবর্তন হয়ে মওদুদের নেতৃত্বে তৃণমূল বিএনপি হয়ে নিবন্ধিত হয়ে যাবে সকলের অগোচরে। তখনি প্রকাশিত হবে মওদুদের অসুস্থতার হাসপাতাল নাটক আর আওয়ামীলীগের নতুন আরেক চমক।

১১ অক্টোবর ২০১৩ .

Please follow and like us:

Add a Comment

Your email address will not be published.

Follow by Email
YouTube
Pinterest
LinkedIn
Share
Instagram
error: Content is protected !!