Home » Featured » ৩৫০ মিলিয়ন নয়, ১৯৯ মিলিয়ন সপ্তাহে ইউরোপীয় ইউনিয়নে পে করতো বৃটেন

৩৫০ মিলিয়ন নয়, ১৯৯ মিলিয়ন সপ্তাহে ইউরোপীয় ইউনিয়নে পে করতো বৃটেন

সৈয়দ শাহ সেলিম আহমেদঃ

 

কিছুদিন আগে ব্রিটেনের ইউরোপীয় ইউনিয়নে থাকা না থাকা নিয়ে যে গণভোট হয়ে গেলো, তাতে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে যাওয়ার ক্যাম্পেইন যারা করতেন, সেই বরিস জনসন, মাইকেল গোভ সহ এই পক্ষ থেকে ব্যাপক প্রচার চালানো হয়েছিলো ব্রিটেন সপ্তাহে ইউরোপীয় ইউনিয়নে ৩৫০ মিলিয়ন পাউন্ড চাদা পরিশোধ করে। ঐ সময়ে বিশাল পোস্টার, নিয়ন সাইন আর ব্রেক্সিট ক্যাম্পেইনে বিশাল গাড়ী বহরে ৩৫০ মিলিয়ন চাদা পরিশোধ বন্ধের ওয়াদা সম্বলিত প্রচারনা চালিয়ে বলা হয়েছিলো- সেই চাদা এনএইচএসে তারা বিনিয়োগ করবেন। যদিও ঐ সময় নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছিলো। সচেতন অনেকেই তখন বলেছিলেন, ব্রেক্সিট ক্যাম্পেইনররা সযত্নে জনগনকে ভুল তথ্য দিচ্ছেন। কিন্তু ব্রেক্সিট ক্যাম্পেইনরা এমনভাবে প্রচারনা চালিয়েছিলেন, অনেকের কাছেই তখন বিশাল এই অংকের অপচয় রুখতে লুফে নিয়েছিলেন, মিডিয়া তখন সরগরম হয়েছিলো। কোন সাংবাদিক তখন ভুলেও প্রশ্ন করেননি ( চ্যানেল ফোর এর এক্সক্লূসিভ ছাড়া)  আসলেই কী ব্রিটেন এতো পয়সা ইউনিয়নে দেয় ?

 

 

তবে ধর্মের ঢোল আপনিই বাজে।  অফিস ফর ন্যাশনাল স্ট্যাটিসটিক  গণভোটের পর আজকে জানিয়ে দিলো, প্রকৃত তথ্য। আফসোস সেই তথ্য তারা আগে প্রকাশ করতে ব্যর্থ হলো। যাই হউক সেই তথ্যে বলা হয়েছে, ৩৫০ মিলিয়ন নয়, বরং ব্রিটেন ১৯৯ মিলিয়ন পাউন্ড  ইউরোপীয় ইউনিয়নে সপ্তাহে  চাদা প্রদান করে।

সেই ক্যাম্পেইন বাস – 

The Vote Leave campaign bus in Truro, Cornwall

 

অফিস ফর ন্যাশনাল স্ট্যাটিসটিকস বলেছে, তারা রিবেট বা ছাড় পেয়েছে। সরকারি খাতে পেমেন্ট পেয়েছে। এসব হিসাবে নিলে ইউরোপীয় ইউনিয়নকে দেয়া বৃটেনের অর্থের পরিমাণ অনেক কমে যায়। রিবেট সুবিধা দেয়ার বিষয়ে আবেদনের আগে বছরে যুক্তরাজ্য ইউরোপীয় ইউনিয়নকে দিয়েছে ১৯.৬ বিলিয়ন  পাউন্ড। সপ্তাহে এর পরিমাণ প্রায় ৩৭.৬ মিলিয়ন পাউন্ড।  কিন্তু রিবেট সুবিধা এসেছে ৪.৯ বিলিয়ন  পাউন্ড। এতে বৃটেন বছরে ইউরোপীয় ইউনিয়নকে বৃটেনের দিতে হয়েছে ১৪.৭ বিলিয়ন  পাউন্ড। ওদিকে সরকারি খাতে ইউরোপীয় ইউনিয়ন বৃটেনকে যে পেমেন্ট দিয়েছে তাতে বৃটেনের এই অংক নেমে এসেছে ১০.৪ বিলিয়ন  পাউন্ড। বছরে ১০.৪ বিলিয়ন কমে  সপ্তাহে  এর পরিমাণ দাড়িয়েছে ১৯৯মিলিয়ন পাউন্ড। আর ২০১৪ সালে এই ফিগার দাড়িয়েছিলো মোটামুটি ১৮৬ মিলিয়ন পাউন্ড ।

 

 

কিন্তু ক্যাম্পেইনের সময় ষ্ট্যাটিস্টিক অফিস বলেছিলো,  ট্রেজারি রিবেট ভ্যাল্যু ডিডাক্ট করেছিলো  ইইউতে কন্ট্রিবিউশন করার সময়কালিন। এবং ঐ একাউন্টে প্রাইভেট সেক্টর, গ্র্যান্ট, রিসার্চ, ইউনিভার্সিটির গ্র্যান্ট ইত্যাদি নেয়া হয়নি বলে বলা হয়েছে।

 

 

এখন মোটা দাগের যে প্রশ্ন- ভুল তথ্যের দায় কে নেবে ?  ভুল সবই ভুল, এই জীবনের পাতায় পাতায় যা লেখা সবই ভুল- এই গানই কী এখন গাইতে হবে ?

 

(স্কাই নিউজের অবলম্বনে)

০১লা আগস্ট ২০১৬-লন্ডন।

sky news link-

http://news.sky.com/story/uk-paid-163199m-to-eu-a-week-official-figures-10519565